বিস্তারিত

অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য এগিয়ে এলেন “স্বরা ভাস্কর”

ছবি : সংগ্রহকৃত

করোনা মোকাবিলায় ভারত জুড়ে চলছে লকডাউন। কিন্তু এই লকডাউনের জেরে বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়েছেন অভিবাসী শ্রমিকরা। মাইলের পর মাইল রাস্তা পায়ে হেঁটে তাঁরা বাড়ি ফিরছেন। অনেকে আবার রাস্তাতেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। আবার অনেকের মৃত্যুও হয়েছে। এবার অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য এগিয়ে এলেন অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর।

মুম্বই থেকে দিল্লিতে ফিরে অভিবাসী শ্রমিকদের সাহায্যের উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি। ঠিক কতজন শ্রমিক বাড়ি ফিরতে চান দিল্লি থেকে সেই হিসেব নথিভূক্ত করেছেন স্বরা ও তাঁর টিম। ইতিমধ্যেই ১৩৫০ জন পরিযায়ী শ্রমিককে উত্তরপ্রদেশে ও বিহারে ঘরে ফিরিয়েছেন স্বরা।

স্বরা জানিয়েছেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য কিছু না করে ঘরে বসে থাকতে লজ্জা করছিল তাঁর। যাঁদের সাহায্যের দরকার তাঁদের পাশে না দাঁড়াতে পেরে খারাপ লাগছিল। আর তাই মুম্বই থেকে দিল্লিতে এসে অভিবাসী শ্রমিকদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন তিনি।

সহজেই অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য ট্রেনের টিকিটের ব্যবস্থা করায়, আম আদমি পার্টির বিধায়ক দিলীপ পাণ্ডেকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্বরা ভাস্কর। দিল্লি সরকারেরও প্রশংসা করেছেন তিনি। দিলীপ পাণ্ডেও স্বরাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। স্বরার এই উদ্যোগের জন্য তাঁকে কুর্ণিশ জানিয়েছেন নেটিজেনরাও।

স্বরা ভাস্কর ভারতের একজন অভিনেত্রী যিনি মূলত হিন্দি চলচ্চিত্র কাজ করেছেন। তিনি দুটি স্ক্রিন পুরস্কার এবং তিনবার ফিল্মফেয়ার এ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনয়নপ্রাপ্ত।

দিল্লীতে জন্মগ্রহণকারী স্বরার বাবা ভারতীয় নৌবাহিনীতে চাকরি করতেন। দিল্লীতে বড় হওয়া স্বরা দিল্লী বিশ্ববিদ্যালয় এবং জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। ২০০৯ সালে মাদোলাল কিপ ওয়াকিং নামের একটি ব্যর্থ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তার অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিলো। ২০১১ সালের চলচ্চিত্র তনু ওয়েডস মনুতে অভিনয় করে (সাপোর্টিং রোলে) স্বরা আলোচনায় আসেন; চলচ্চিত্রটি মাধবন এবং কঙ্গনা রানাউত অভিনীত একটি ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র ছিলো। চলচ্চিত্রটির জন্য স্বরা ফিল্মফেয়ার এ্যাওয়ার্ড নমিনেশন পেয়েছিলেন।

২০১৩ সালের রানঝানা চলচ্চিত্রের জন্যও স্বরা ফিল্মফেয়ার পুরস্কার মনোনয়ন পেয়েছিলেন। এরপর তনু ওয়েডস মনুর সিক্যুয়েল এবং প্রেম রতন ধন পায়ো তে স্বরার অভিনয় প্রশংসিত হয়।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক