বিস্তারিত

অভিনেত্রীর রহস্যজনক মৃত্যুতে নয়া মোড়, গ্রেফতার স্বামী

ছবি : সংগ্রহকৃত

পুলিশের প্রাথমিক ধারণা ছিল তামিল টেলিভিশন অভিনেত্রী ভি জে চিত্রা অবসাদের জেরেই শ্যুটিং শেষে চেন্নাইয়ের পাঁচতারা হোটেলের রুমে আত্মঘাতী হয়েছিলেন। মাত্র ২৮ বছর বয়সেই হোটেলের রুমে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন দক্ষিণের ওই জনপ্রিয় অভিনেত্রী।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পোস্টমর্টেম রিপোর্ট অনুযায়ী অভিনেত্রী আত্মহত্যা করেছেন। আর্থিক কারণে তিনি আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন বলে অনুমান করছে পুলিশ। তবে ওই অভিনেত্রীর মায়ের অভিযোগ মেয়ের উপর শারীরিক অত্যাচারের জেরেই এই মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এই অভিযোগের ভিত্তিতে আত্মহত্যার প্ররোচনায় অভিনেত্রী স্বামী হেমন্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১০ ডিসেম্বর, চেন্নাইয়ের শহরতলির এক পাঁচতারা হোচেলে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন চিত্রা। জানা গিয়েছে, কয়েকমাস আগেই অভিনেত্রীর সঙ্গে বিবাহ হয় ব্যবসায়ী হেমন্তের। তদন্তকারীদের কথায়, টেলিভিশন সিরিয়ালে নায়কদের সঙ্গে অন্তরঙ্গ দৃশ্যে চিত্রার অভিনয় দেখে মাঝেমধ্যেই রাগ করতেন হেমন্ত। টিভিতে চিত্রার অন্তরঙ্গ মুহূর্তের অভিনয়গুলিকে পছন্দ করতেন না। যেদিন চিত্রা মারা গিয়েছিল, সেইদিনও তাঁদের মধ্যে মন কষাকষি চলে। এমনকি চিত্রাকে ঠেলে ফেলেও দেন হেমন্ত।

ঘটনার পর বেশ কিছুদিনের জন্য জিজ্ঞাসাবাদের পর হেমন্তকে পুলিশ গ্রেফতার করে। মৃত্যুর কিনারা খুঁজতে গিয়ে চেন্নাইয়ে শ্যুটিংয়ে উপস্থিত কর্মী ও চিত্রার বন্ধু ও সহকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত ১০ ডিসেম্বর, ইভিপি ফিল্ম সিটিতে শ্যুটিং শেষ করে রাতে আড়াইটে নাগাদ চেন্নাইয়ের নাজারেথপেট্টাইয়ের পাঁচতারা হোটেল রুমে ফিরে যান। ওই হোটেল রুমের সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। সেখানে হবু স্বামী হেমন্তের সঙ্গে ছিলেন চিত্রা। অভিনেত্রীর মৃত্যুর ঘিরে তাঁর হবু স্বামী জানিয়েছেন, শ্যুটিং শেষে হোটেল রুমে ফেরার পর চিত্রা স্নানে গিয়েছিলেন। তাঁকে বলে গিয়েছিলেন, কিছুমধ্যেই দেখা করবেন। কিন্তু বেশ কয়েকঘন্টা কেটে গেলে হেমন্তের সঙ্গে দেখা না হলে দরজায় নক করেন তিনি। সাড়া না পেলে হোটেলের কর্মীদের ডেকে আনেন তিনি। ডুপ্লিকেট চাবি দিয়ে দরজা খুলতেই অভিনেত্রীর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান তিনি।

সংবাদের ধরন : বিনোদন নিউজ : নিউজ ডেস্ক