বিস্তারিত

অবাধ নির্বাচন হলে ক্ষমতাসীনদের ভরাডুবি নিশ্চিত

ছবি : সংগ্রহকৃত

আজ শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে ২০ দলীয় জোটের শরিক জাতীয় পার্টির একাংশের চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমেদের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভায় বিএনপির মহাসচিব বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ সরকার গঠন ছাড়া নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি হবে না।

অবাধ নির্বাচন হলে ক্ষমতাসীনদের ভরাডুবি নিশ্চিত। তাই তারা একতরফা নির্বাচন করে যে কোনো উপায়ে ক্ষমতায় থাকতে চায় বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকারের মিথ্যা মামলা, হামলায় সারা দেশ কারাগারে পরিণত হয়েছে। এটা আসলে এখন নরক হয়ে গেছে। প্রতিটি গ্রাম, ইউনিয়নে বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর আগাম মামলা দিয়ে রাখা হচ্ছে। ঢাকার সব থানায়, ওয়ার্ডে আগাম মামলা দিয়ে রাখছে। নির্বাচন এলে এসব মামলায় নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করা হবে। কী কাপুরুষ। কী কাওয়ার্ড।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার প্রচণ্ড ভয়ে আছে। জনগণ তাদের সঙ্গে নেই দেখে তারা আগাম মামলা, আটক শুরু করেছে। তারা ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য সমস্ত বিবেক, মনুষত্বকে বিসর্জন দিয়ে প্রতিটি ইউনিয়ন, থানাসহ ঢাকার ওয়ার্ডগুলোতেও মামলা দেওয়া শুরু করেছে।

স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ড. টি আই এম ফজলে রাব্বি চৌধুরী। বক্তব্য দেন- মোস্তফা জামাল হায়দার, জাফর আহমেদের মেয়ে কাজী জয়া, ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, জোটের শরিক দলগুলোর নেতাদের মধ্যে ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, খন্দকার গোলাম মোর্তজা, ড. রেদওয়ান আহমেদ, আহসান হাবিব লিঙ্কন, সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, খন্দকার লুৎফর রহমান, গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, প্রয়াত শফিউল আলম প্রধানের মেয়ে তাসমিয়া প্রধান প্রমুখ

সংবাদের ধরন : র্শীষ সংবাদ নিউজ : নিউজ ডেস্ক